কেন নিজের কন্ঠস্বরের প্রতি অপছন্দ আমাদের

by
Apr 3, 2015
75 Views
Comments Off on কেন নিজের কন্ঠস্বরের প্রতি অপছন্দ আমাদের
0 0

আমাদের মধ্যে অনেকেরই অনেক জিনিসে অপছন্দ, যদি হয় সেটা নিজের কন্ঠস্বর তবে মনে হয় বলা ভুল হবে না। হ্যাঁ, আসলেই এমন হয়। আপনি নিজের কন্ঠস্বরকে যেভাবে শুনতে পেতে চান, আশার অনুরুপ আপনার কাছে তা শোনায় না। তাই নয় কী!

স্বাভাবিকভাবে আপনার কাছে অপরের কন্ঠস্বরকে বেশ কোমল মনে হয়! পাখির আওয়াজ, মৌমাছির ভন ভন শব্দ, লোকজনের স্বাভাবিক কথাবার্তা, MP3 মিউজিক; এসব শব্দ আমাদের শ্রুতিমধুর বলে মনে হয়। এমনকি কানে হেডফোন লাগিয়ে ঘুমানোটা অনেকের কাছে বেশ আনন্দের হয়ে থাকে।

এর কারণ হল, এইসব শব্দ তরঙ্গ শুধুমাত্র বায়ুর মধ্যে দিয়ে সংকোচন আর প্রসারণের মাধ্যমে প্রেসার সৃষ্ঠি করে যা আপনার কানের টিম্পেনিক পর্দাকে ধাক্কা দেয়, যা পরে সিগনাল এ রুপান্তরিত হয়। এই সিগন্যাল অডিটরি স্নায়ুর মাধ্যমে মস্তিস্কে পৌছায় এবং মস্তিস্ক আপনাকে বলে দেয় এর মানে কী! এই প্রক্রিয়া খুবই প্রাকৃতিক ও স্বাভাবিক।

কিন্তু আপনি যখন আপনার নিজের মুখের উচ্চারিত শব্দ শুনবেন তখন আসলে কী হয় জানেন?

আসলে আপনি যখন নিজের মুখ দিয়ে কথা বলেন, তখন আপনার কন্ঠে সৃষ্ঠ কম্পন আপনার অভ্যন্তরীন স্কাল বা কংকাল শরীরকে কম্পিত করে অবশেষে আপনার কানে পৌঁছায়। যা অন্য কোথাও থেকে শোনা শব্দের মত না। ফলে নিজের কন্ঠস্বরে সৃষ্ঠ শব্দ শুনতে আমাদের বিরক্তি বোধহয়!

এখন, তাই বলে কী নিজের কন্ঠস্বরকে অপছন্দ বা ঘৃনা করতে যাবেন? আমার মনে হয়, আপনার এটাকে ভালবাসা উচিত।

Article Categories:
বিজ্ঞান