বিশ্বের দুর্ধর্ষ যতসব গোয়েন্দা সংস্থাঃ পর্ব-৩

by
May 15, 2015
116 Views
Comments Off on বিশ্বের দুর্ধর্ষ যতসব গোয়েন্দা সংস্থাঃ পর্ব-৩
0 0

ISI(InterServices Intelligence) 

পাকিস্তানের সবচেয়ে আলোচিত সমালোচিত এবং বিতর্কিত গোয়েন্দাসংস্থার নাম “আইএসআই”। গত শতকে আফগানিস্তানে আফগান মুজাহিদিন, তালেবানদের সহযোগিতার জন্য আলোচিত এই সংস্থাটি। বর্তমানে আমরা ISI বলতে যে সংস্থাটিকে বুঝি, সেটি মুলত জিয়াউল হক ক্ষমতায় আসার পর নতুন রুপে সাজানো আইএসআই। জিয়াউল হক জুলফিকার আলী ভুট্টোকে ক্ষমতাচ্যুত করে পাকিস্তানের ক্ষমতায় আসেন। তখন জিয়াউল হক Lieutenant-General Hamid Gul কে দায়িত্ব দেন ISI এর প্রধান হিসেবে। এর হাতেই নতুন এক আগ্রাসী রূপ পায় ISI আর হয়ে ওঠে ভয়ংকর এক গোয়েন্দা সংস্থা। পাকিস্তানের ভেতরে, ইরান, আফগানিস্তান, ভারত, চীন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, খুব কম দেশে আছে  যে দেশে নাসকতামুলক কর্মকান্ড চালানোর অভিযোগ ISI কে নিতে হয় নি। মজার ব্যাপার হল বর্তমানে আমেরিকান ক্রাইম নিউজ আইএসআই-কে পৃথিবীর সবচেয়ে উচ্চ পর্যায়ের এবং সবচেয়ে শক্তিশালী গোয়েন্দা সংস্থা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। আইএসাই এর সদর দপ্তর ইসলামাবাদের সোহরাওয়ার্দী নামক জায়গায়। অবশ্যই পাকিস্তানের যত গোয়েন্দা সংস্থা রয়েছে তাদের মধ্যে আইএসআই হল খুবই প্রভাবশালী, দুর্ধর্ষ ও বিখ্যাত।তবে পাকিস্তানের আরো দু’টি প্রভাবশালী গোয়েন্দা সংস্থা হল Intelligence Bureau (IB) এবং Military Intelligence (MI)। আইএসাই-কে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কমান্ড পাওয়ার হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয় এবং একই সাথে দেশটির শীর্ষস্থানীয় সংস্থা হিসেবেও পরিচিত।

আইএসআই এর তৎকালীন প্রধান Hamid Gul কে বলা হত “The Father of Taliban”। সোভিয়েত ইউনিয়নের জন্য আফগানস্তানকে ভিয়েতনাম বানিয়ে ফেলার পেছনে অন্যতম কারিগর ছিলো ISI, এছাড়া CIA-এর অস্ত্র তালেবান বা আলকায়দার হাতে তুলে দেয়া এবং সরাসরি আফগানিস্তানের ভেতরে সোভিয়েত বিরোধী অভিযানে ভুমিকা রাখে ISI উপরন্তু মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্নায়ু যুদ্ধ জয়ের পেছনে এই সংস্থার অবদান কম না।

মার্কিনরা আগে না হলেও এখন জানে যে, লাদেনকে  দীর্ঘদিন লুকিয়ে রেখেছিলো এই ISI। সিআইএ(CIA) এবং NSA এর মত সংস্থা যেখানে লাদেনকে ধরার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে গেছে তাঁদের সমস্ত শক্তি নিয়ে, সেখানে প্রায় ১০ টি বছর বিন লাদেন’কে তাঁরা লুকিয়ে রেখে চোর পুলিশ খেলেছে CIA এর সাথে।সুতরাং বুঝতেই পারছেন আমেরিকার ক্রাইম নিউজ কি কারণে আইএস আই কে কি কারণে পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী ও প্রভাবশালী গোয়েন্দা সংস্থার মর্যাদা দিয়েছে।

CIA এর সাবেক প্রধান মাইক হেইডেন বলেছিলেন, তিনি ISI কে বিশ্বাস করতেন না। আবার অবিশ্বাস করার উপাও ছিলো না। কারণ ২০০১ সালের পর যত বড় বড় আলকায়দা নেতা ধরা পড়েছে, সেটা খালিদ শেখ মোহাম্মদ থেকে ৯/১১ এর আগে ধরা খাওয়া রামজি বিন ইউসুফ, অধিকাংশকেই ধরে আমেরিকার কাছে দিয়ে দিয়েছে আইএসআই। যখনই CIA বা মার্কিন প্রশাসনের সন্দেহ হইতো, তখনই আল কায়দা বা তালেবানের কোনো একজনকে ধরিয়ে দিয়ে বিশ্বাস ফিরিয়ে আনতো ISI.

লাদেন হত্যার পর CIA আর ISI এর দুরত্ব আর অবিশ্বাস আরো বেড়েছে। বলা যায় পাকিস্তান নামক দেশটি টিকে আছে মুলত তাঁদের এই গোয়েন্দাসংস্থার উপর ভর করে। তবে পাকিস্তানের অনেক ঝামেলার পেছনেও আছে এই ISI, কারণ এটা চলে একরকম এর নিজেস্ব নিয়মে। এমনকি এর উপর স্বয়ং সে দেশের সরকারের নিয়ন্ত্রন আছে কিনা, সেটা নিয়েই সন্দেহ আছে।আবার এর ভেতরেও আছে নানান ফ্র্যাকশন।সেইসাথে পাকিস্তানের ভেতরে রাজনীতিতে এটা নাক গলায়। পাকিস্তানের রাজণীতি কলুষিত হবার পেছনে অনেক কারনের একটি হল এই আইএসআই।

আইএসআই এর বর্তমান প্রধান হলেন Lieutenant-General Rizwan Akhter যিনি ২০১৪ সালের অক্টোবরে Zaheerul Islamএর স্থলাভিষিক্ত হন।বিশ্বের দুর্ধর্ষ এই গোয়েন্দা সংস্থাটির পেছনে কাজ করে থাকে প্রায় ১০,০০০ অফিসার ও কর্মচারী।

বিশ্বের দুর্ধর্ষ যতসব গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর ধারাবাহিক পর্বগুলো সম্পর্কে আরও জানতে আশা করি সঙ্গে থাকবেন।

তথ্যসূত্রঃ

উইকিপেডিয়া

http://english.aljazeera.net/mritems/Documents/2010/6/13/20106138531279734lse-isi-taliban.pdf

http://www.fas.org/irp/world/pakistan/isi/

http://www.atimes.com/atimes/South_Asia/DJ30Df01.html

http://www.ndtv.com/article/world/obama-wont-back-mullens-claim-on-pakistan-137813

Article Tags:
·
Article Categories:
বিবিধ