কীবোর্ডের ফাংশান-কী F1 থেকে F12 পর্যন্ত ব্যবহার জানুন

by
Oct 30, 2015
44 Views
Comments Off on কীবোর্ডের ফাংশান-কী F1 থেকে F12 পর্যন্ত ব্যবহার জানুন
0 0

আমরা যারা কম্পিউটার ব্যবহার করি দেখা যায় সাধারণত আমরা কম্পিউটারে বিভিন্ন কাজ করতে গিয়ে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই মাউস ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আপনি যেকোন কাজ কীবোর্ড থেকেই করতে পারবেন। হ্যাঁ, মাউস না থাকলে বা মাউস নষ্ট হয়ে গেলে কীবোর্ডের শর্টকার্ট কী এর ব্যবহার একটু জেনে নিলেই আগের তুলনায় অতি অল্প সময়েই যেকোন কাজ দ্রুত করতে পারবেন। আজকে আপনাদের দেখাবো কিভাবে ল্যাপটপ কিংবা ডেক্সটপ কম্পিউটারের কীবোর্ডের ফাংশান কী গুলো ব্যবহার করতে হয়।

F1

১। এই ফাংশান কী-টি সাধারণত হেল্প কী হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কোন প্রোগ্রাম নিয়ে অসুবিধা হলে F1 প্রেস করলেই আপনার সামনে হেল্প স্ক্রিন ভেসে উঠবে।

২। উইন্ডোজ-কী এবং F1 একসাথে প্রেস করুন সঙ্গে সঙ্গে উইন্ডোজের হেল্প এন্ড সাপোর্ট সেন্টার স্ক্রিন চালু হয়ে যাবে।

F2

১। এই ফাংশান কী-টি সাধারণত যেকোন ভার্সনের উইন্ডোজের ক্ষেত্রে যেকোন ফাইল Rename করতে অর্থাৎ নতুন করে নামকরণ খুব দ্রুত করতে ব্যবহার করা হয়।

২। Alt + Ctrl + F2 কীগুলো একসাথে প্রেস করলে MS Word এ ডকুমেন্ট উইন্ডো ওপেন করবে।

৩। Ctrl + F2 একসাথে প্রেস করলে MS Word এ প্রিন্ট করার প্রিভিউ উইন্ডো দেখাবে।

৪। কোন ফোল্ডারে ক্লিক করে F2 প্রেস করলেই খুব দ্রুত টাইপ করে ফোল্ডারের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন।

F3

১। এই ফাংশান কী-টি সাধারণত কম্পিউটারে সার্চ কী হিসেবে ব্যবহৃত হয়। কম্পিউটারের ডেক্সটপের পর্দায় থাকা অবস্থায় যদি F3 কী টি প্রেস করেন তবে সার্চ বক্স চালু হবে। সেখান থেকে যেকোন ফাইলের নাম টাইপ করে ফাইল খুজুন সহজে খুব দ্রুত।

২। F3 কী প্রেস করে উইন্ডোজ কমান্ড লাইনের সর্বেশষ কমান্ড টি লাগলে আবার প্রয়োগ করতে পারবেন। এরজন্য আপনাকে কমান্ড আর নতুন করে টাইপ করতে হবে না।

৩। Shift + F3 প্রেস করে MS Word এ যেকোন শব্দ সিলেক্ট করলে সেগুলো আপার কেস থেকে লওয়ার কেস এ কনভার্ট হবে এবং এর সাহায্যে যেকোন লাইনের প্রথম বর্ণটি ক্যাপিটাল লেটারে করে নেওয়া যায়।

F4

১। F4 ফাংশান কী-টি প্রেস করলে Windows Explorer এবং Internet Explorer এ এড্রেস বার ওপেন হয়।

২। F4 প্রেস করলে MS Word এর ক্ষেত্রে সর্বশেষ কাজটি আরেকবার করা যায় অর্থাৎ রিপিট করা যায়।

৩। Alt + F4 প্রেস করলে এটি যেকোন এক্টিভ উইন্ডো কে বন্ধ করে দিবে। এই ফাংশান দিয়ে কম্পিউটার বন্ধ করা যায় খুব দ্রুত।

৪। Ctrl + F4 প্রেস করলে এক্টিভ উইন্ডোর পিছনে মিনিমাইজ করা উইন্ডো গুলোকে দ্রুত বন্ধ করে দেওয়া যায়।

F5

৫। F5 ফাংশান কী-টি প্রেস করলে যেকোন ইন্টারনেট ব্রাউজার এর ওপেন পেজ পূনরায় লোড করা যায় অর্থাৎ Reload করা যায়।

৬। F5 প্রেস করলে MS PowerPoint এ স্লাইড শো শুরু হয়ে যায়।

৭। F5 কী প্রেস করে MS word এ যেকোন ফাইল খুঁজা এবং শব্দ রিপ্লেস করা যায়।

F6

১। যেকোন ইন্টারনেট ব্রাউজারে F6 প্রেস করলে কার্সর এড্রেস বার এ চলে যায়।

২। Ctrl + Shift + F6 একসাথে প্রেস করলে MS Word এ আরেকটি নতুন ডকুমেন্ট খোলা যায় প্রথমটি ওপেন রেখেই।

৩। F6 প্রেস করে কোন কোন ল্যাপটপের সাউন্ড ভলিউম কমিয়ে নেওয়া যায়।

F7

১। F7 ফাংশান কী টি MS Word এ Spell Check এবং Grammar Check-এ ব্যবহার করা হয়।

২। মজিলা ব্রাউজার এ F7 প্রেস করলে Caret Browsing অন হয়ে যায়।

৩। F7 প্রেস করে কোন কোন কম্পিউটারের সাউন্ড ভলিউম বাড়ানো যায়।

F8

১। এই ফাংশান কী-টি উইন্ডোজ স্টার্ট মেন্যুতে প্রবেশ করতে এবং উইন্ডোজ ওপেন হওয়ার সময় F8 প্রেস করলে উইন্ডোজ Safe mood এ চালু হবে।

২। F8 প্রেস করে উইন্ডোজ রিকাভারি সিস্টেম চালু করা যায় তবে সেখানে ইনস্টল সিডি লাগতে পারে যা ব্যবহার করে উইন্ডোজ সেট আপ দেওয়া হয়েছে।

F9

১। এই ফাংশান কী-টি ব্যবহার করে MS word এ যেকোন ডুকুমেন্ট Refresh করে নেওয়া যায়।

২। F9 প্রেস করে Microsoft outlook এ যেকোন ইমেইল সেন্ড এবং রিসিভ করা যায়।

৩। F9 প্রেস করে কোন কোন ল্যাপটপের Brightness যায়।

F10

১। F10 ফাংশান কী-টি প্রেস করা মানে মাউসের right click করা, যেকোন ফোল্ডারে ক্লিক করে F10 প্রেস করেই রাইট ক্লিক করা হয়ে যাবে।

২। F10 প্রেস করলেই MS Word এ ম্যানু বার চালু হয়ে যায়।

৩। F10 প্রেস করে কোন কোন ল্যাপটপের Brightness বাড়ানো যায়।

F11

১। যেকোন ইন্টারনেট ব্রাউজারের Full Screen এ প্রবেশ এবং বাতিল করতে F11 প্রেস করতে হয়।

২। Ctrl + F11 প্রেস করলে কোন কোন ল্যাপটপের Hidden Recovery Partition এ প্রবেশ করা যায়। (যেমন: Dell Computer)

F12

১। F12 ফাংশান কী-টি প্রেস করলেই MS Word এ Save as অপশন চালু হয়ে যায়।

২। MS Word এর ডকুমেন্ট সেভ করার জন্য Shift + F12 একসাথে প্রেস করলেই Ctrl + S এর মত কাজ করে।

৩। Ctrl + Shift + F12 একসাথে প্রেস করে সহজেই MS Word এর যেকোন ডকুমেন্ট প্রিন্ট করা যায়।

এই পোস্টটি যদি আপনাদেরকে কিছুটা হলেও তথ্য দিতে সক্ষম হলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। ধন্যবাদ।

আরও পড়ুন – কম্পিউটার বন্ধ করার বিভিন্ন উপায় 

Article Tags:
Article Categories:
কম্পিউটার