মহাদেশ পরিচিতি – অ্যান্টার্কটিকা

by
May 21, 2016
85 Views
Comments Off on মহাদেশ পরিচিতি – অ্যান্টার্কটিকা
0 0

♦ অ্যান্টার্কটিকা পৃথিবীর দক্ষিণতম মহাদেশ, যেখানে ভৌগোলিক দক্ষিণ মেরু অবস্থিত।

♦ এটির আয়তন ১,৪০,০০,০০০ বর্গ কিলোমিটার বা ৫৪,০০,০০০ বর্গমাইল।

♦ এই মহাদেশ বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম মহাদেশ, যেখানে কোন মানব বসতি নেই।

♦ অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে কোন স্থায়ী অধিবাসী নেই এবং ঊনবিংশ শতাব্দীর পূর্ব পর্য্যন্ত কোন মানুষ এই স্থানকে দেখেছিলেন বলে কোন প্রমাণ নেই। এতৎসত্ত্বেও প্রথম শতাব্দী থেকেই একটি বিশ্বাস প্রচলিত ছিল যে, পৃথিবীর দক্ষিণে টেরা অস্ট্রালিস নামক এক বিশাল মহাদেশ উপস্থিত থাকতে পারে। টলেমি মনে করতেন যে, ইউরোপ, এশিয়া ও উত্তর আফ্রিকা নিয়ে গঠিত তৎকালীন যুগে পরিচিত পৃথিবীর ভূমিসমষ্টির সামঞ্জস্য রক্ষার জন্য এই মহাদেশ দক্ষিণ দিকে অবস্থিত। এমনকি সপ্তদেশ শতাব্দীর শেষার্ধে অভিযাত্রীরা দক্ষিণ আমেরিকা ও অস্ট্রেলিয়া আবিষ্কারের পর যখন জানা যায়, এই দুইটি মহাদেশ প্রবাদ হিসেবে প্রচলিত অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশের অংশ নয়, তখনও ভৌগোলিকরা বাস্তবের থেকে দ্বিগুণ আকারের মহাদেশের অস্তিত্বের কথা বিশ্বাস করতেন। অস্ট্রেলিয়া আবিষ্কারের পর এই মহাদেশের নামকরণ টেরা অস্ট্রালিস শব্দটি থেকে করা হয়, কারণ তখন ম্যাথিউ ফ্লিন্ডার্স নামক অভিযাত্রী সহ বেশ কিছু মানুষ মনে করতেন অস্ট্রেলিয়ার দক্ষিণে উল্লেখযোগ্য মাপের কোন মহাদেশ পাওয়া সম্ভব নয়।  সেই কারণে অ্যান্টার্কটিকার প্রবাদের সঙ্গে প্রচলিত হলেও টেরা অস্ট্রালিস নামটি এই মহাদেশের নামের সঙ্গে যুক্ত হয়নি।

♦ অ্যান্টার্কটিকা বিশ্বের শীতলতম ও শুষ্কতম মহাদেশ এবং এর গড় উচ্চতা ও বায়ুপ্রবাহবেগও মহাদেশ গুলির মধ্যে সর্বাধিক। বার্ষিক বৃষ্টিপাতের পরিমাণ মাত্র ২০০ মিমি. হওয়ায় এই মহাদেশকে শীতল মরুভূমি হিসেবে গণ্য করা হয়। এই মহাদেশের তাপমাত্রা সর্বনিম্ন রেকর্ড −৮৯ °সে (−১২৯ °ফা) পর্য্যন্ত পৌঁছেছে, যদিও বছরের শীতলতম সময়ে গড় তাপমাত্রা-৬৩ °সে (−৮১ °ফা)।

♦ এই মহাদেশে কোন স্থায়ী বাসিন্দা না থাকলেও সারা বছর প্রায় ১,০০০ থেকে ৫,০০০ মানুষ এই মহাদেশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা বিভিন্ন গবেষণা কেন্দ্রে অবস্থান করেন। প্রবল শৈত্যের সাথে লড়াই করতে সক্ষম উদ্ভিদ ও প্রাণীই এ মহাদেশে টিকে থাকতে সক্ষম, যার মধ্যে রয়েছে পেঙ্গুইন, সিল, নেমাটোড, টার্ডিগ্রেড, মাইট, বিভিন্ন প্রকার শৈবাল এবং অন্যান্য মাইক্রোঅর্গানিজম এবং তুন্দ্রা উদ্ভিদসমূহ।

♦ ১৯৫৯ সালে ১২টি দেশের মধ্যে অ্যান্টার্কটিকা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়; যাতে বর্তমানে ৪৬টি দেশ স্বাক্ষর করেছে। এ চুক্তির মাধ্যমে অ্যান্টার্কটিকায় সামরিক কর্মকান্ড এবং খনিজ সম্পদ খনন নিষিদ্ধ, বৈজ্ঞানিক গবেষণাকে সহায়তা এবং মহাদেশটির ইকোজোন সুরক্ষিত করা হয়েছে। বিভিন্ন দেশের ৪,০০০ এরও বেশি বিজ্ঞানী অ্যান্টার্কটিকায় বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণায় নিয়োজিত রয়েছেন।

এক নজরে অ্যান্টার্কটিকা:

আয়তন – ১,৪০,০০,০০০ বর্গ কিমি(৫৪,০০,০০০ মাইল)।

জনসংখ্যা – স্থায়ী অধিবাসী – শূন্য (২০১৫)।

অস্থায়ী অধিবাসী – ৫,০০০ ।

তথ্যসূত্রঃ উইকিপিডিয়া।

আরও জানতে পড়ুন- #মহাদেশ পরিচিতি – এশিয়া

Article Tags:
Article Categories:
বিশ্বজগৎ